শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ০৩:০১ পূর্বাহ্ন

ব্যারিস্টার মইনুলের ৫ মাসের আগাম জামিন

ব্যারিস্টার মইনুলের ৫ মাসের আগাম জামিন

নন্দিত ডেস্ক : মানহানীর দুই মামলায় সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে ৫ মাসের আগাম জামিন দিয়েছেন আদালত। সোমবার (২১ অক্টোবর) বিচারপতি আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালতে ব্যারিস্টার মইনুলের পক্ষে শুনানি করেন জয়নুল আবেদীন। এর আগে রোববার (২১ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকা মহানগর হাকিম মুহাম্মদ আসাদুজ্জামান নূরের আদালতে মানহানির মামলা দায়ের করেন সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি। এদিন আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ ও নথি পর্যালোচনা করে মামলাটি আমলে নিয়ে এ গ্রেফতারি পরোয়ানায় জারি করেন। একই সঙ্গে এই মামলার পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য ২২ নভেম্বর দিন ঠিক করেছেন আদালত।

জয়নুল আবেদীন সাংবাদিকদের বলেন, ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগে জামালপুর ও ঢাকায় দু’টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই দুই মামলায় আদালতে জামিন আবেদন করা হলে আদালত ৫ মাসের জামিন মঞ্জুর করেছেন।

একাত্তর টেলিভিশনের টকশোতে তিনি একটি মন্তব্য করেছিলেন। সেই কারণে তার বিরুদ্ধে দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ওই মন্তব্যের জন্য ফোন করে তিনি ক্ষমাও চেয়েছেন, লিখিতভাবেই সরি বলেছেন। তারপরও মামলা হয়েছে, যা আমরা আশা করিনি। জামালপুরে যিনি মামলা করেছেন তিনি যুব মহিলা লীগের সদস্য। তাহলে বোঝা যায়, এর পেছনে একটা রাজনৈতিক উদ্দেশ্য আছে। যার কাছে ক্ষমা চাওয়া হয়েছে, তিনিও মামলা করছেন- এটা দুঃখজনক। মইনুল হোসেন আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেছেন। আদালত ৫ মাসের আগাম জামিন দিয়েছেন।

এ বিষয়ে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন বলেন, আমি একটি জাতীয় ঘটনার সম্মুখিন হয়েছি। আমাকে অত্যন্ত অপমান করা হয়েছে, জামায়াতের এজেন্ট বলে। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আর কিছু বলব না।

সংশ্লিষ্ট আদালতের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রাফি আহমেদ বলেন, আমরা জামিন আবেদনের বিরোধীতা করেছিলাম। আদালত তাকে জামিন দিয়েছেন। আমরা এই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের করব।

গত ১৬ অক্টোবর মধ্যরাতে একাত্তর টেলিভিশনের নিয়মিত আয়োজন একাত্তর জার্নালে রাজনৈতিক সংবাদের বিশ্লেষণ চলছিল। অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন মিথিলা ফারজানা। এতে অতিথি ছিলেন মাসুদা ভাট্টি ও সাখাওয়াত হোসেন সায়ন্ত। আলোচনায় স্টুডিওর বাইরে থেকে যুক্ত হন ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন।

আলোচনার ফাঁকে মাসুদা ভাট্টির প্রশ্ন ছিল— সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি আলোচনা চলছে যে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন ঐক্যফ্রন্টে জামায়াতের প্রতিনিধিত্ব করছেন। এর জবাবে ব্যারিস্টার মইনুল বলেন, ‘আপনার দুঃসাহসের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ দিচ্ছি। আপনি চরিত্রহীন বলে আমি মনে করতে চাই।’

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ