মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ০২:১৯ পূর্বাহ্ন

তাইজুল ঘূর্ণিতে ২৮২ রানে শেষ জিম্বাবুয়ে

তাইজুল ঘূর্ণিতে ২৮২ রানে শেষ জিম্বাবুয়ে

স্পোর্টস ডেস্ক :: আগের দিনই ৫ উইকেটে ২৩৬ রান করেছিল জিম্বাবুয়ে। দ্বিতীয় দিনের শুরুতে পিটার মুর ও রাগিস চাকাভা দারুণ কিছুরই ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন। দারুণ এক জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন। তবে তাইজুল ইসলামের ঘূর্ণিতে পরে লক্ষ্য পূরণ হয়নি তাদের

শেষ পাঁচ উইকেট হারিয়েছে তারা স্কোরবোর্ডে ২১ রান যোগ করতেই। শেষ পর্যন্ত ২৮২ রানে জিম্বাবুয়ের প্রথম ইনিংস গুটিয়ে যায়। পরে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমেছে বাংলাদেশ। লাঞ্চের আগে ১ ওভার ব্যাট করে কোন উইকেট না হারিয়ে ২ রান করেছে দলটি। ইমরুল কায়েস ও লিটন কুমার দাস দুইজনই ১ রান নিয়ে ব্যাট করছেন।

দ্বিতীয় দিনের শুরু থেকেই দুর্দান্ত বোলিং করেন তাইজুল ইসলাম। প্রথম ইনিংসে একাই তুলে নিয়েছেন ৬টি উইকেট। ক্যারিয়ারে চতুর্থবার পাঁচ উইকেট কিংবা তার বেশি পেলেন তাইজুল। দারুণ বোলিং করেছেন আরেক স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপুও। তার শিকার দুই উইকেট। তবে জিম্বাবুয়ের ইনিংসের শেষ দিকে ধ্বসে পড়লেও ব্যতিক্রম ছিলেন পিটার মুর। এক প্রান্ত আগলে রেখে দারুণ ব্যাট করে করেছেন হার না মানা ৬৩ রান। ১৯২ বলে ৬টি চারে এ রান করেছেন তিনি।

এর আগে আগে ম্যাচের প্রথম দিন টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা মোটামুটি ভালোই হয়েছিল জিম্বাবুয়ের। ভালো শুরু পাওয়ার খানিক পর ওই তাইজুলেই কুপোকাত জিম্বাবুয়ে। ব্রায়ান চারি দারুণ দুই বাউন্ডারিতে দিচ্ছিলেন ভাল কিছুর ইঙ্গিত। প্রথমে তার উইকেট গেল কুৎসিত এক শটে। হুট করে টি-টোয়েন্টি মেজাজের স্লগ সুইপ করতে গেলে হয়েছেন বোল্ড।

ওয়ানডের ছন্দটা ধরে রাখতে পারেননি ব্র্যান্ডন টেইলর। তাইজুলকে ফরোয়ার্ড শর্ট লেগে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ৬ রান করে। টিকে ছিলেন অধিনায়ক মাসাকাদজা। অনেকদিন পর টেস্টে ফেরা এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান দিচ্ছিলেন আস্থা। লাঞ্চের পর পরই লোকাল বয় আবু জায়েদ রাহির ভেতরে ঢুকা বলে ফিফটি পেরিয়েই থামেন তিনি।

উইলিয়ামসের সঙ্গে ৪৪ রানের জুটির পর নাজমুল ইসলাম অপু সোজা বলে বোল্ড হন সিকান্দার রাজা। উইলিয়ামস যেভাবে খেলছিলেন সেঞ্চুরিটা মনে হচ্ছিল পেয়েই যাচ্ছেন। বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডেতে ভীষণ সফল উইলিয়ামস। কিন্তু এর আগে কখনো ‘প্রিয় প্রতিপক্ষ’ এর বিপক্ষে টেস্টে নামা হয়নি তার। প্রথমবার নেমেই ওয়ানডের ছন্দ দেখালেন তিনি।

১৭৩ বলে ৯ চারে ৮৮ রান করে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের আচমকা লাফানো বলে ফেরেন উইলিয়ামস। শেষ বিকেলে আর কোন বিপর্যয়ে পড়েনি জিম্বাবুয়ে। রেজিস চাকাভাকে নিয়ে স্বস্তিতেই দিন পার করেছিলেন পিটার মুর।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *







© All rights reserved © 2017 Nonditosylhet24.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ