৩১ অক্টোবর ২০২০ ০৬:৩০ পূর্বাহ্ন

৩১ অক্টোবর ২০২০ ০৬:৩০ পূর্বাহ্ন

বড়লেখা প্রতিনিধি

অক্টোবর ১০, ২০২০
১০:২৮ অপরাহ্ন


বড়লেখায় তরুণীকে 'ধর্ষণ' দুই যুবক আটক


মৌলভীবাজারে ১৮ বছরের এক তরূণীকে ধর্ষণের অভিযােগে পুলিশ দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে। শনিবার ওই তরুণীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের বাদেপুকুরিয়া গ্রামের মৃত রফিক উদ্দিনের ছেলে দেলোয়ার হোসেন (২৫) ও উপজেলার চুকারপুঞ্জি গ্রামের মাসুক মিয়ার ছেলে আলী আহমদ (১৮)। শুক্রবার (৯ অক্টোবর) সন্ধ্যায় পৃথক স্থান থেকে তাদের আটক করা হয়। মামলা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ওই তরুণী ছোটবেলা থেকে নানার বাড়িতে বসবাস করেন। গত বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) তিনি নিজের খালার বাড়িতে বেড়াতে যান। রাতে নানাবাড়ি থেকে খবর আসে তার নানা অসুস্থ। অসুস্থ নানাকে দেখতে গতকাল শুক্রবার সকালে খালার বাড়ি থেকে নানার বাড়ির উদ্দেশে রওয়ানা হন তিনি। শাহবাজপুর বাজারে আসার পর তরুণীর খালাতো ভাই সিএনজি অটোরিকশার চালক আলী আহমদের গাড়িতে তাকে তুলে দেন। পথে চালক আলী শাহবাজপুর বাজারের পাহারাদার দেলোয়ারকে গাড়িতে উঠিয়ে নেন। একপর্যায়ে অটোরিকশার ভেতরে দেলোয়ার তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। এ অবস্থায় তরুণী গাড়ি থেকে নামার চেষ্টা করলে চালক আলীর সহযোগিতায় দেলোয়ার জোর করে তরুণীকে আতুয়া এলাকার নির্জন স্থানে নিয়ে যান। পরে সেখানে দেলোয়ার তাকে ধর্ষণ করেন। এ সময় স্থানীয় ইসলামপুর এলাকা থেকে একটি মোটরসাইকেলে করে লোকজন এলে তারা দু'জন ওই তরুণীকে সেখানে রেখে পালিয়ে যান। এদিকে নির্দিষ্ট সময়ে নানাবাড়ি না যাওয়ায় তরুণীকে খুঁজতে গিয়ে তার খালাতো ভাই ও স্থানীয় লোকজন আতুয়া এলাকায় পেয়ে তাকে উদ্ধার করেন। এ ঘটনায় দুপুরে ধর্ষণের অভিযোগে দেলোয়ার ও সহযোগিতার অভিযোগে আলীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন ওই তরুণী। মামলার পরিপ্রেক্ষিতে শাহবাজপুর তদন্ত কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (পুলিশ পরিদর্শক) মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশ অভিযান চালিয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় পৃথক স্থান থেকে অভিযুক্ত দু'জনকে গ্রেপ্তার করে। বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার শনিবার দুপুরে বলেন, 'ধর্ষণের অভিযোগ এনে এক তরুণী থানায় দুইজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। মামলার পরই পুলিশ অভিযুক্ত দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে। তাদেরকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।'