২৭ অক্টোবর ২০২০ ১২:৫৯ অপরাহ্ন

২৭ অক্টোবর ২০২০ ১২:৫৯ অপরাহ্ন

তাহিরপুর প্রতিনিধি

অক্টোবর ১০, ২০২০
১০:৪৮ অপরাহ্ন


তাহিরপুরের যুবককে ছুরিকাঘাত


পূর্বশত্রুতার জের ধরে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাতে এক যুবক গুরুতর আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে আজ শনিবার (১০ অক্টোবর) বিকেলে সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের বালিয়াঘাট বাজারে। আহত যুবকের নাম মো. রুবেল মিয়া (২৫)। তিনি উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের নবাবপুর গ্রামের আফতাব উদ্দিনের ছেলে। গুরুতর আহত অবস্থায় রুবেল মিয়াকে প্রথমে তাহিরপুর সদর হাসপাতাল কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের নবাবপুর গ্রামের মোস্তফা মিয়ার ছেলে মনির মিয়ার সঙ্গে গত ৬ মাস আগে ফুটবল খেলা নিয়ে মাঠে রুবেল মিয়ার বাকবিতন্ডা হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুইপক্ষের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে গ্রামবাসী বিষয়টি শালিসের মাধ্যমে নিষ্পত্তি করে দেন। সপ্তাহখানেক আগে মনির মিয়াসহ তার লোকজন রুবেল মিয়াকে শ্রীপুর বাজারে মারধরের চেষ্টা করলে উপস্থিত লোকজন তাকে প্রতিহত করেন। পরে রুবেল মিয়া এ ব্যাপারে তাহিরপুর থানায় মনির মিয়াসহ কয়েকজনকে আসামি করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ দায়েরের পর গত ৫ দিন আগে তাহিরপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তদন্ত করে। এরই জের ধরে শনিবার বিকেলে বালিয়াঘাট নতুন বাজারের মেইন রোডে রুবেলকে একা পেয়ে ধারালো ছুরি দিয়ে তার পিঠে, কোমরে এবং হাতে এলোপাতাড়ি আঘাত করেন মনির মিয়া। একপর্যায়ে বাজারের লোকজন এগিয়ে এলে মনির পালিয়ে যান। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে তাহিরপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকরা তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। তাহিরপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. সুমন বর্মন বলেন, 'আহত যুবকের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে সিলেটের এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।' এ প্রসঙ্গে ট্যাকেরঘাট পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ নজরুল ইসলাম বলেন, 'গত কয়েকদিন আগে রুবেল মিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়ার পর পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। শুনেছি আজ (শনিবার) বিকেলে মনির মিয়া বাজারে প্রকাশ্যে রুবেল মিয়াকে ছুরিকাঘাত করেছে। পুলিশ তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।'