২৪ নভেম্বর ২০২০ ১১:১৭ অপরাহ্ন

২৪ নভেম্বর ২০২০ ১১:১৭ অপরাহ্ন

স্পোর্টস ডেস্ক

নভেম্বর ০৭, ২০২০
৯:৩১ অপরাহ্ন


৮ মৌসুম ব্যর্থ কোহলি, অধিনায়কত্ব নিয়ে প্রশ্ন


আইপিএলে ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলিকে নিয়ে প্রশ্ন তোলার অবকাশ নেই। তবে অধিনায়ক হিসেবে টানা আটবছর দায়িত্বে থেকেও ব্যর্থতার পর সমালোচনার তীরে বিদ্ধ কোহলি। সাবেক দুই ভারতীয় ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর ও সঞ্জয় মাঞ্জেরকার মনে করেন, রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর অধিনায়কের পদ থেকে কোহলিকে সরিয়ে দেয়া উচিত। শুক্রবার সানরাইজার্স হায়দরাবাদের কাছে এলিমিনেটরে হেরে বিদায় নিয়েছে বেঙ্গালুরু। আইপিএলের সব আসরে বড় বাজেটের দল গড়েও এখনো ট্রফিশূন্য আরসিবি। ২০১৩ সালে আরসিবির দায়িত্ব পান কোহলি। আট মৌসুমে মাত্র তিনবার দলকে প্লে-অফে নিয়ে যেতে পেরেছেন তিনি। ফাইনালে একবার। কোহলিকে ছাড়া পাঁচ আসরের দুইবারই ফাইনালে খেলে বেঙ্গালুরু। ক্রিকেটওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফোর আলোচনায় যোগ দিয়ে গম্ভীর বলেন, এই ব্যর্থতার জন্য অধিনায়ককে জবাবদিহি করা উচিত, বদল আনা দরকার দলটির নেতৃত্বে, ‘শতভাগ (অধিনায়কত্বের বদল দরকার)। কারণ সমস্যা হচ্ছে জবাবদিহিতার। ৮ বছর ধরে ব্যর্থ। ৮ বছর অনেক লম্বা সময়। আমাকে আরও একজন অধিনায়ক দেখান, অধিনায়ক না কেবল একজন খেলোয়াড় দেখান যিনি ৮ বছর এক দলে খেলেও শিরোপা জেতেননি এবং তবু খেলেই চলেছেন। কাজেই অধিনায়ককে জবাবদিহি করতে হবে।’ ‘ঠিক মনে নেই ২০১৬ নাকি ২০১৭ মৌসুমে তারা ৪৯ রানেও গুটিয়ে গিয়েছিল। কেবল এক ম্যাচ জিতেছিল ওই মৌসুমে। বিরাট কোহলির বিরুদ্ধে আমার কিছু নেই। কিন্তু কেউ একজনকে তো এগিয়ে আসতে হবে, বলতে হবে হ্যাঁ, আমি দায় নিচ্ছি।’ ২০১২ সালে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে শিরোপা পাইয়ে দেওয়া অধিনায়ক গম্ভীর মনে করেন, অধিনায়ক হিসেবে কোহলি পেয়ে গেছেন অনেক বেশি সুযোগ, ‘আপনি রবীচন্দ্রন অশ্বিনকে দেখেন। দুই বছর অধিনায়কত্ব করেছে, সাফল্য পায়নি। তাকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। আমরা এমএস ধোনি নিয়ে কথা বলি, রোহিত শর্মা নিয়ে কথা বলি, সঙ্গে বিরাট কোহলির নামও বলি। তারা কিন্তু এক না। এমএস ধোনি আইপিএলে তিনটা শিরোপা জিতেছে, রোহিত চারটা শিরোপা জিতেছে। এই কারণেই লম্বা সময় ধরে তারা অধিনায়ক। আমি নিশ্চিত রোহিত শর্মা যদি ৮ বছর ধরে সাফল্য না পেত তাকে সরিয়ে দেওয়া হতো। জবাবদিহিতা উপর থেকে আসতে হবে। সাপোর্ট স্টাফ বা ম্যানেজমেন্ট থেকে নয়। নেতৃত্ব থেকে।’ গম্ভীরের সঙ্গে কিছুটা দ্বিমত করে সঞ্জয় মাঞ্জরেকার বলেন, মূলত অধিনায়ক নয় ফ্র্যাঞ্চাইজিটির স্বত্বাধিকারদের বদল দরকার। কারণ অধিনায়ক ঠিক করেন তারা, দল তৈরিতেও ভূমিকা থাকে তাদের। মাঞ্জেরকারকে থামিয়ে গম্ভীর ব্যাখ্যা করেন, কেন জাতীয় দল থেকে ভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজির অধিনায়কত্ব, ‘জাতীয় দলে সে তো জসপ্রিত বুমরাহকে পাচ্ছে, লোকেশ রাহুলকে পাচ্ছে, সবাইকে পাচ্ছে, মোহাম্মদ শামিকে পাচ্ছে। সাফল্য পাওয়া সহজ হচ্ছে। কাজেই ফ্র্যাঞ্চাইজির অধিনায়কত্ব আলাদা।’