১০ এপ্রিল ২০২১ ০৫:২৩ অপরাহ্ন

১০ এপ্রিল ২০২১ ০৫:২৩ অপরাহ্ন

শাহ মো.তানভীর আহমদ, পর্তুগাল থেকে

মার্চ ১৭, ২০২১
৮:৫৮ পূর্বাহ্ন


অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন স্থগিত করেছে পর্তুগাল


পর্তুগালের স্বাস্হ্য মন্ত্রনালয় কভিড-১৯ এর বিরুদ্বে অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন দেওয়া স্হগিত করেছে । ইউরোপের বিভিন্ন দেশে এই ভ্যাকসিনের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া পাওয়ায় পর্তুগাল সরকার এই সিদ্ধান্ত গ্রহন করে ।গতকাল সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, গ্রাভা ফ্রেইটাস, ইনফার্ডেডের প্রেসিডেন্ট রুই ইভো এবং কভিড ১৯-এর বিরুদ্ধে টিকা দেওয়ার জন্য টাস্কফোর্সের সমন্বয়ক, হেনরিক গুউভিয়া সংবাদ সম্মলেনে এই তথ্য জানান । ইনফার্মেডের প্রেসিডেন্ট রুই আইভো বলেন যে, এই সিদ্ধান্তটি সাময়িক এবং সতর্কতার জন্য নেওয়া হয়েছে । যাহাতে ইউরোপীয় মেডিসিন এজেন্সি ( ইএমএ) আরও বেশি ডেটা এবং পরিক্ষা নিরিক্ষা করার সুযোগ পায় । এটি ভ্যাকসিন গ্রহণ এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার মধ্যে কোনও কার্যকরী সম্পর্ক রয়েছে কিনা তা দেখার জন্য আমাদেরকে অপেক্ষা করতে হবে । স্বাস্থ্য বিভাগের মহাপরিচালক, গ্রাভা ফ্রেইটাস বলেন , ভ্যাকসিনের পর শরীরের রক্তে জমাট বাঁধা এই প্রতিক্রিয়াটি সত্যিই বিরল তবে এটা অত্যন্ত গুরুতর । তিনি বলেন ইউরোপে অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন প্রায় ১৭ মিলিয়ন ডোজ দেওয়া হয়েছে এর মধ্যে কয়েক ডজন লোকের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে । তবুও, তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন , পর্তুগালে এই ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ যারা নিয়েছেন তারা যদি কোন ধরনের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া পান তাহলে সাথে সাথে যেনো ডাক্তারের সরণাপন্ন হোন । ভ্যাকসিনের জন্য গঠিত টাস্কফোর্সের সমন্বয়কারী বলেন ইতিমধ্যেই অ্যাস্ট্রাজেনেকা থেকে প্রাপ্ত প্রায় ৪ লাখ ৫০ হাজার ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে এবং ২ লক্ষ ভ্যাকসিন সঞ্চয়স্থানে রয়েছে । প্রথম ডোজটি গ্রহণ করার পর দ্বিতীয় ডোজটি দেওয়ার আগ পর্যন্ত প্রত্যাশিত সমাধান পাওয়া যাবেনা বলে তিনি স্বীকার করেন । ইনফারমেডের প্রেসিডেন্ট বলেন এখন পর্যন্ত পর্তুগালে অ্যাস্ট্রাজেনিকা ভ্যাকসিনের বিরূপ প্রতিক্রিয়ার ঘটনা ধরা পরেছে দুটি । তবে তিনি গ্যারান্টি দিয়ে বলেন যে অন্যান্য ইউরোপীয় দেশগুলিতে থ্রোম্বোয়েম্বোলিজমের (রক্ত জমাট বাঁধার) তুলনায় “এটা আলাদা ধরন ছিলো এবং রোগীদেরকে চিকিৎসার পর এখন তারা সুস্থতার পথে রয়েছে । প্রাথমিকভাবে, মার্চ মাসের ১২ তারিখ থেকে কিছু ইউরোপীয় দেশ এই ভ্যাকসিন স্থগিত হওয়ার সংবাদ প্রকাশের পর ইনফার্ড এবং ডিজিএস এক বিবৃতিতে বলে যে “এখনও অবধি প্রাপ্ত প্রমাণগুলি নিশ্চিত করে না যে এই ভ্যাকসিনটিই থ্রোমম্বোমোলিক কারণ ।তবে তারা জাতীয় এবং ইউরোপীয় বিশেষজ্ঞের সহিত সমন্বয় করে সাবধানতার সহিত এটা পর্যবেক্ষন করবেন বলে আশ্বস্ত করেন । এই বিষয়ে সিদ্বান্ত নিতে আগামী বৃহস্পতিবার ইউরোপীয় মেডিসিন এজেন্সি ( ইএমএ) এক জরুরি সভা আয়োজন করেছে । উল্লেখ্য এখন পর্যন্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রায় ১৭ টি দেশ আস্ট্রেজানেকার ভ্যাকসিন স্হগিত করেছে ।