১৩ মে ২০২১ ০২:৩৯ পূর্বাহ্ন

১৩ মে ২০২১ ০২:৩৯ পূর্বাহ্ন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

এপ্রিল ২৩, ২০২১
২:২২ অপরাহ্ন


অনলাইন প্রতারণায় পুনের নারী হারালেন প্রায় ৪ কোটি রুপি


অনলাইনে প্রতারণার ফাঁদ। তা যে বুঝে চলতে পারবে, সে নিরাপদ। কিন্তু একবার যদি কেউ ছলে বলে কলে কৌশলে সেই ফাঁদে পা রাখে, তাহলে সে নিঃস্ব হয়ে যেতে পারে। এ জন্য অনলাইনে কাউকে বন্ধু করতে গেলে বা আর্থিক লেনদেন করতে গেলে আগে নিশ্চিত হতে হয়, বিষয়টি কতটা সত্য। এমনই এক প্রতারণার ফাঁদে পা দিয়ে ভারতের পুনের এক নারী মাত্র কয়েক মাসে হারিয়েছেন প্রায় ৪ কোটি রুপি। তিনি এ সময়ে ২০৭টি ট্র্যানজেকশনের মাধ্যমে ২৭টি একাউন্টে জমা দিয়েছেন এই অর্থ। এ খবর দিয়েছে অনলাইন এনডিটিভি। এতে বলা হয়েছে, ৬০ বছর বয়সী ওই নারী মহারাষ্ট্রের পুনে শহরের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ।

তিনি যখন বিষয়টি বুঝতে পারেন তখন পুলিশের দ্বারস্থ হন। সাইবার সেল পুলিশের কর্মকর্তা অঙ্কুশ চিন্তামান বলেছেন, ২০২০ সালের এপ্রিলে ওই নারী বৃটেন থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একজন বন্ধুর কাছ থেকে ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট পান। তারা বন্ধু হওয়ার পর মাত্র ৫ মাসের মধ্যে তাদের মধ্যে আস্থার ভিত গড়ে ওঠে। এক পর্যায়ে বৃটেনের ওই বন্ধু তাকে জানান যে, জন্মদিনের উপহার হিসেবে তিনি ওই নারীকে একটি আইফোন পাঠিয়েছেন। সেপ্টেম্বরে ওই বৃটিশ বন্ধু তাকে জানান যে, দিল্লি বিমানবন্দরে কাস্টমস ক্লিয়ারেন্স দিতে বড় অংকের একটি অর্থ পরিশোধ করতে হবে তাকে। এক্ষেত্রে তিনি নিজেকে একজন কুরিয়ার এজেন্সির প্রতিনিধি, একজন কাস্টমস অফিসার হিসেবে পরিচয় দেন। দাবি করেন, অনলাইনে আরো অর্থ পরিশোধ করতে হবে তাকে। কারণ, তার নামে অনেক স্বর্ণালংকার ও বৈদেশিক মুদ্রা পাঠানো হয়েছে। এমনি করে ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ওই নারী কমপক্ষে ৩ কোটি ৯৮ লাখ ৭৫ হাজার ৫০০ রুপি পরিশোধ করেছেন। এরপরই তিনি বুঝতে পারেন, বড় এক প্রতারণার ফাঁদে পা দিয়েছেন। তখন তিনি পুলিশে যান এবং মামলা করেন। পুলিশ বর্তমানে এ ঘটনা তদন্ত করছে।