১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৩:৩০ পূর্বাহ্ন

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৩:৩০ পূর্বাহ্ন

স্পোর্টস ডেস্ক

সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১
১০:২৯ পূর্বাহ্ন


অক্টোবরেই বিসিবি’র নির্বাচন পাপনই সভাপতি


অক্টোবর-নভেম্বর ওমান ও দুবাইয়ে বসবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর। এ নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেটেও টান টান উত্তেজনা। এরই মধ্যে টাইগারদের বিশ্বকাপ স্কোয়াডও ঘোষণা করা হয়েছে। অন্যদিকে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে (বিসিবি) বইতে শুরু করেছেন নির্বাচনী হাওয়া। জানা গেছে বিশ্বকাপের আগেই হবে বিসিবির নির্বাচন। এরইমধ্যে তফসিল ঘোষণার জন্য গঠন করে দেয়া হয়েছে নির্বাচন কমিশন। তফসিলের মাধ্যমে নির্ধারণ করা হবে নির্বাচনের তারিখ। খবরটি জানিয়েছেন বিসিবির মিডিয়া বিভাগের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। তিনি বলেন, ‘যতটা বলতে পারি অক্টোবরেই হতে যাচ্ছে বিসিবির নির্বাচন। বিশ্বকাপের আগেই নির্বাচনের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে নির্দিষ্ট তারিখ জানা নেই। কারণ নির্বাচন কমিশন গঠন হয়েছে। তারাই তফসিলের মধ্য আগামী নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করবেন।’ গুঞ্জন উঠেছে এবার বিসিবির সভাপতি থাকছেন না নাজমুল হাসান পাপন। তবে বিষয়টি মোটেও সত্যি নয় বলে দাবি বিসিবির বেশ কয়েকজন পরিচালকের। শুধু তাই নয় বেশ কয়েকটি সূত্রে জানা গেছে এবারও বিসিবির সভাপতি হচ্ছেন পাপনই। আর তার কোন প্রতিদ্বন্দ্বীও নেই। চার বছর পর গত ২৬শে আগস্ট বিসিবির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতি জানিয়েছিলেন, এবারের নির্বাচনে চমক আসবে গেল ১লা সেপ্টেম্বর বোর্ড মিটিং শেষেও একই কথা বলেছেন তিনি। মূলত তার ইঙ্গিত ছিল আসন্ন নির্বাচনে তিনি অংশ নিলেও বোর্ড সভাপতি হবেন না। তিনি বলেছিলেন, ‘অনেক কিছুই আসবে যা আগে কখনও হয়নি বা নতুন কিছু। নির্বাচনে ভিন্নতার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি এবং আসবে। তবে কি সেই ঘোষণা তখন তিনি তা খোলাসা করেননি। শুধু জানিয়েছিলেন, নির্বাচন কমিশনার যখন কাজ শুরু করবেন, তখনই জানতে পারবেন, পরিবর্তন দেখতে পারবেন।’ টানা দুই দফা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতির দায়িত্ব সামলাচ্ছেন পাপন। সামনের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা না থাকায় আবারও বিসিবি প্রধানের চেয়ারে বসার সুযোগ নাজমুল হাসান পাপনের। কিন্তু ১লা সেপ্টেম্বরের বোর্ড সভা শেষে তার অন্য ইঙ্গিত। হাসতে হাসতেই বলেছেন, ‘প্রেসিডেন্ট নাও হতে পারি।’ তবে পাপনের সভাপতি না হওয়ার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়ে এক পরিচালক বলেন, ‘ পাপনকে বাদ দিয়ে অন্য কেউ বোর্ডের পরিচালক হবেন এটি বড় কঠিন বিষয়। তবে যতটা জানি সভাপতি এবারও তিনিই হচ্ছেন।’ সরকারের মনোনয়নে ২০১২ সালের অক্টোবরে বিসিবি সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেন পাপন। ২০১৩ ও ২০১৭ সালের নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বোর্ড সভাপতি হন। এবারও তিনিই থাকছেন না এটা বলার অপেক্ষা রাখেনা। তবে জানা গেছে পরিচালক পদে আসতে পরে বেশ কয়েকটি নতুন মুখ। আগের কয়েকজন পরিচালক মারা গেছেন। এছাড়াও বর্তমান কয়েকজন পরিচালকের ব্যক্তিগত নানা বিতর্ক থাকায় তাদের সরিয়ে দেয়া হচ্ছে বোর্ড থেকে। সেখানে দেখা যাবে নতুন মুখ। তবে কারা আসছেন নতুন ও ঠিক কত তারিখে নির্বাচন তা নিয়ে মুখ খোলেননি বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজার জালাল ইউনুস। তিনি বলেন, ‘আসলে নির্বাচনের তফসিল হলেই তারিখ ঘোষণা হবে। এটি তাই আগাম বলা যাচ্ছেনা। আর নির্বাচনেতো নানা পরির্বতন থাকে। সেটি সময়ই বলে দেবে।’