চাঁদা তুলে ৪০০ হাত পতাকা বানালেন আর্জেন্টাইন ভক্তরা

আর মাত্র কয়েকদিন পরেই শুরু হতে যাচ্ছে ফুটবলের সবচেয়ে বড় আসর ‘ফুটবল বিশ্বকাপ’। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ফুটবল ভক্তদের মাঝে বইছে আনন্দের বন্যা। পিছিয়ে নেই বাংলাদেশি ফুটবল ভক্তরাও। 

চার বছরের ইতিহাস ভুলে নতুন করে উন্মাদনা জেঁকে বসেছে বাংলাদেশের ফুটবল ভক্তদের মাঝে। প্রতিবারের মতো পাবনার চাটমোহর উপজেলাতেও ফুটবল ভক্তদের মাঝে ফুটবল জ্বর বইছে। 

এরই ধারাবাহিকতায় উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল পার্শডাঙ্গা ইউনিয়নের বালুদিয়াড় গ্রামের যুব সমাজের উদ্যোগে বানানো আর্জেন্টিনার ৪০০ হাত পতাকা ঘিরে শোরগোল পড়ে গেছে চারিদিক। নিজেদের মধ্যে চাঁদা দিয়ে বানানো এই পতাকা নিয়ে প্রতিদিনই শিশু-কিশোর, তরুণ, যুবক থেকে নানা বয়সী মানুষ উল্লাসে মেতে উঠেছেন। সবার কন্ঠে মেসি, ডি-মারিয়ার বন্দনা। তাদের এই উদ্যোগ ও ভালবাসাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন গ্রামের সাধারণ মানুষ।

জানা যায়, বিশ্বকাপ ফুটবল খেলা উপলক্ষে বালুদিয়াড় গ্রামের যুব সমাজের উদ্যোগে আর্জেন্টিনার পতাকা বানানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়। নিজেদের মধ্যে চাঁদা তুলে সংগ্রহ হয় ৭ হাজার টাকা। সেই টাকায় ৫ দিনে আর্জেন্টিনার বিশালাকার পতাকাটি বানানো হয়। যুব সমাজের এই উদ্যোগে সহযোগিতার হাত প্রসারিত করে সামিল হন, স্কুল কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ী, প্রবাসী থেকে শুরু করে নানা শ্রেণি পেশার মানুষ।

আর্জেন্টিনার সমর্থকদের আশা, লিওনেল মেসির হাতে উঠবে এবারের বিশ্বকাপ শিরোপা। যে কারণে প্রতিদিন বিকেল হলেই গ্রামের নির্দিষ্ট একটি স্থানে জড়ো হচ্ছেন বিভিন্ন বয়সী মানুষ। ৪০০ হাতের সেই পতাকা নিয়ে প্রতিদিন পুরো গ্রাম ঘুড়ে বেড়াচ্ছেন তারা। দূর দেশ থেকেই উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছেন বালুদিয়াড় গ্রামের আর্জেন্টাইন ভক্তরা।

আর্জেন্টিনার সমর্থক ফরিদ উদ্দিন, সেলিম রেজা, আলামিন হোসেন, আসাদুজ্জামান উকিল, ফিরোজ হোসেন, নাসিম সৈকতসহ বেশ কয়েকজন বলেন, আমাদের গ্রামের বেশিরভাগ মানুষই আর্জেন্টিনা ফুটবল দলের ভক্ত। নিজেদের মধ্যে চাঁদা তুলে ৪০০ হাত দের্ঘ্যের পতাকা বানানো হয়েছে। কাতার গিয়ে খেলা দেখার সৌভাগ্যে আমাদের হবে না। তাই, সবাই মিলে খেলা দেখার জন্য বড় পর্দার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আশা করছি, এবারের বিশ্বকাপ শিরোপা উঠবে লিওনেল মেসির হাতে।