১৬ জুলাই ২০২০ ০৯:২৯ পূর্বাহ্ন

১৬ জুলাই ২০২০ ০৯:২৯ পূর্বাহ্ন

লাইফস্টাইল ডেস্ক

এপ্রিল ২১, ২০২০
৭:৪৫ পূর্বাহ্ন


চলতি বছর বাজারে আসছে করোনার ওষুধ!


করোনাভাইরাস সংক্রমণ হয়েছে এমন ব্যক্তির গুরুতর উপসর্গ ঠেকাতে কিছু ওষুধের পরীক্ষা শুরু করেছেন গবেষকরা। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা পরিকল্পনা করেছেন যে, কোনো ব্যক্তির শরীরে করোনা প্রথম লক্ষণগুলো দেখা গেলেই তাদের এমন কিছু ওষুধ দেয়া হবে, যা আগে থেকেই প্রচলিত রয়েছে। এ গবেষণার প্রথম পর্বে ব্রিটেনের চিকিৎসকরা ম্যালেরিয়া-প্রতিরোধী ওষুধ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন কার্যকর হয় কিনা তা পরীক্ষা করে দেখবেন। আর অন্য আরেকটি ওষুধের কথা বিবেচনা করা হচ্ছে। তা হলো এ্যাজিথ্রোমাইসিন নামে একটি অ্যান্টিবায়োটিক। এ পরীক্ষার প্রধান অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ক্রিস্টোফার বাটলার বলছেন, খুব সহজে হাতের কাছে পাওয়া যায় এমন ওষুধের কথাই বিবেচনা করা হচ্ছে। কারণ এর কার্যকারিতা নিশ্চিত হলেই কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই এগুলো ব্যবহার শুরু করা যাবে। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে এক জরিপ রিপোর্টের বরাত দিয়ে সংবাদে বলা হয়েছে যে, রেমডেসিভির নামে একটি ওষুধ দিয়ে ১১৩ জন করোনাভাইরাস রোগীকে দ্রুত সারিয়ে তোলা সম্ভব হয়েছে। লন্ডনের দৈনিক দি গার্ডিয়ানে বলা হয়, আমেরিকান ফার্ম জিলেড সায়েন্সেস এ ভাইরাস প্রতিরোধী ওষুধটি তৈরি করেছে এবং তার পরীক্ষায় অংশ নেয় শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি হাসপাতাল। এই ওষুধ ব্যবহারের পর দেখা গেছে, জ্বর-কাশি-শ্বাসকষ্ট ছিল এমন ১২৫ রোগীর মধ্যে ১১৩ রোগীই এক সপ্তাহের মধ্যে হাসপাতাল ত্যাগ করেছে। ওষুধটি দেবার পরেও মৃত্যু হয় দুজনের। জরিপের ফল প্রকাশ করে স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কিত প্রকাশনা স্ট্যাট নিউজ। এর পর ডাউ জোনস, ফুটসি ও স্টক্সসহ ইউরোপ ও আমেরিকার শেয়ারবাজারে দাম প্রায় ৩ শতাংশ বেড়ে যায়। তবে স্ট্যাট নিউজের এক ভিডিওতে একজন বিশেষজ্ঞ কাথলিন মুলেন বলেন, এ জরিপ থেকে এখনই কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া কঠিন। তথ্যসূত্র: বিবিসি বাংলা