২৯ মে ২০২২ ০২:২২ অপরাহ্ন

২৯ মে ২০২২ ০২:২২ অপরাহ্ন

নন্দিত সিলেট

জানুয়ারী ২২, ২০২২
৩:৫১ অপরাহ্ন


শাবিতে কাফনের কাপড় পরে শিক্ষার্থীদের মৌন মিছিল


উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমদের পদত্যাগের দাবিতে এবার কাফন মিছিল করেছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) বিকেল ৩টার দিকে ক্যাম্পাসের গোলচত্বর থেকে মিছিলটি শুরু হয়। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে চেতনা একাত্তর হয়ে পুনরায় গোলচত্বরে শেষ হয়।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, চলমান আমরণ অনশনের আজ চতুর্থ দিন। এর মধ্যে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১৬ জন। এখনো উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অনশনে আছেন ৭ জন।

এদিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা মৃত্যুর দিকে গেলেও প্রশাসন এখন পর্যন্ত কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না। এ কারণেই তারা বাধ্য হয়ে কাফনের কাপড় পরে মৌন মিছিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

আন্দোলনকারীদের মুখপাত্র গণমাধ্যমকে বলেন, তাদের এক দাবি ভিসি ফরিদ উদ্দিন আহমদের পদত্যাগ। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা প্রাণ দিয়ে দেবে তবু আন্দোলন থেকে পিছপা হবে না। ইতোমধ্যে অনশনরত অনেক শিক্ষার্থী মুমূর্ষ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তবু তারা অনশন ভঙ্গ করেননি।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, শাবির পরিস্থিতি এবং তাদের দাবির কথা জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদের কাছে চিঠি দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর কাছেও তারা এই সমস্যা সমাধানের আবেদন জানাচ্ছেন।

এদিকে, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলের মাধ্যমে শুক্রবার শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপুমনি শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিদের ঢাকায় গিয়ে আলোচনার প্রস্তাব পাঠান। শিক্ষার্থীরা মন্ত্রীর এই প্রস্তাবে তাকে ধন্যবাদ জানিয়ে জানায়, অসুস্থ ও মুমূর্ষ অবস্থায় সহযোদ্ধাদের ফেলে তাদের ঢাকায় যাওয়া সম্ভব নয়। এজন্যে তারা শিক্ষামন্ত্রীকে ভিডিওকলে আলোচনার প্রস্তাব দেয়, অথবা শিক্ষামন্ত্রী শাবিতে এসে তাদের অবস্থা দেখার আমন্ত্রণ জানায়। শিক্ষার্থীদের এই প্রস্তাবে শিক্ষামন্ত্রী তাদের ফের ঢাকায় যাওয়ার প্রস্তাব দেন।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিরা ঢাকায় না গেলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষক প্রতিনিধি দল শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করতে শুক্রবার ঢাকায় গেছে। শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. তুলসী কুমার দাসের নেতৃত্বে এই কমিটিতে আছেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোহাম্মদ মুহিবুল আলম, ফিজিক্যাল সায়েন্সেস অনুষদেন ডিন ড. মো. রাশেদ তালুকদার, অ্যাপ্লায়েড সায়েন্সেস অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আরিফুল ইসলাম, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. খায়রুল ইসলাম রুবেল। তারা আজ শনিবার শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার দুপুর আড়াইটা থেকে উপাচার্যের পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আমরণ অনশনে নামেন শাবিপ্রবির ২৪ শিক্ষার্থী। এরআগে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি রাতে বেগম সিরাজুন্নেছা চৌধুরী হলের প্রভোস্ট প্রত্যাহারসহ তিন দফা দাবিতে আন্দোলনে নামেন ওই হলের ছাত্রীরা। পরে দাবি মেনে নেওয়া হবে বলে দেওয়া উপাচার্যের আশ্বাসে হলে ফেরেন তারা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবি, উপাচার্য তাদের দাবি না মেনে সময়ক্ষেপণের চেষ্টা করেন। পরে সেই আন্দোলনে সাধারণ শিক্ষার্থীরাও যোগ দেন। উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রাখার ঘটনাও ঘটে। এক পর্যায়ে পুলিশ গুলি ও সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করলে আহত হন শিক্ষার্থীরা। যদিও পুলিশ ৩০০ জনকে অজ্ঞাত দেখিয়ে শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পরে উপাচার্যকে অপসারণের দাবিতে আমরণ অনশনে নামেন শিক্ষার্থীরা।