১১ অগাস্ট ২০২২ ১১:৩৫ পূর্বাহ্ন

১১ অগাস্ট ২০২২ ১১:৩৫ পূর্বাহ্ন

নন্দিত সিলেট

জুলাই ০৪, ২০২২
১১:১৩ অপরাহ্ন


ভিজিএফের পচা চাল আটকে দিলেন মেয়র


কুড়িগ্রামের উলিপুর পৌরসভায় সরকারি খাদ্যগুদাম থেকে ভিজিএফের বরাদ্দকৃত দুর্গন্ধযুক্ত নিম্নমানের চাল সরবরাহের অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় পৌর মেয়র চাল গ্রহণ না করে তা আটকে দিয়ে খাদ্যগুদাম কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার বিকালে উলিপুর পৌরসভায়।

পৌরসভা সূত্রে জানা গেছে, পবিত্র ঈদুল আজাহা উপলক্ষ্যে পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের ৩ হাজার ৮১ দরিদ্র ও অসচ্ছল পরিবারের মাঝে ভিজিএফের ১০ কেজি করে চাল বিতরণের বরাদ্দ পাওয়া যায়। সেই হিসাবে ৩০ টন ৮১০ কেজি (৩০ হাজার ৮শ ১০ কেজি) চাল সোমবার বিকালে উলিপুর খাদ্যগুদাম থেকে সরবরাহ করা হয়।

ওই চাল ট্রলিযোগে পৌরসভায় পৌঁছলে কিছু চালের বস্তা গুদামে তোলা হয়। এর মধ্যে দুর্গন্ধযুক্ত নিম্নমানের খাবার অযোগ্য চালের বিষয়টি চোখে পরে। তখন পৌর কর্মচারীরা চালের বস্তা বাছাই করতে গিয়ে দেখেন বিভিন্ন ধরনের চাল সরবরাহ করা হয়েছে।

এ অবস্থা দেখে পৌর মেয়র মামুন সরকার মিঠু খাদ্য গুদাম কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবগত করেন। পরে খাদ্যগুদাম কর্মকর্তা শাহীনুর রহমান পৌরসভায় গিয়ে খারাপ চাল পরিবর্তন করে দিতে চান। কিন্তু মেয়র খারাপ চাল আটকে দিয়ে জানতে চান এই নিম্নমানের চাল কোথায় সরবরাহ করা হবে। ফলে চাল নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হয়।

পৌর মেয়র মামুন সরকার মিঠু ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খাদ্যগুদাম থেকে নিম্নমানের পচা চাল সরবরাহ করা হয়েছে; যা খাওয়ার যোগ্য নয়। এ চাল গরিব মানুষের মাঝে বিতরণ করলে আমার বদনাম হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুনাম ক্ষুন্ন হবে।

এ বিষয়ে উলিপুর খাদ্যগুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহীনুর আলম জানান, ডিলাররা ছাঁটাইয়ের মাধ্যমে চালগুলো দিয়েছেন। গুদামে চালের খামারের চারিদিকে ওষুধ প্রয়োগের কারণে (আউটার লেয়ারে) চাল সাদা হতে পারে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিপুল কুমার জানান, বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি। মেয়রের কাছে লিখিত অভিযোগ চাওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।